লজিক্যাল ফ্যালাসি

0
71

আমরা আমাদের প্রাত্যহিক জীবনে অনেক ঘটনা দেখি এবং নিজেরাও বেশ কিছু কাজে জড়িয়ে পড়ি। যেমনঃ কারো সাথে ঝগড়া লাগলে কিছুক্ষণ তর্কাতর্কি করার পর গালিগালাজ করে, আঘাত করে নাজেহাল করি এবং শেষে দাবি করি বিপক্ষের বক্তব্যে ভুল ছিল, সকালে ডিম খেয়ে পরীক্ষা দিলে রেজাল্ট শূণ্য আসবে, অমুক বিষয়ে আমি একাডেমিক পড়াশুনা করেছি, তাই আমার কথা সত্য- এসবই একেকটা লজিক্যাল ফ্যালাসি।

লজিক্যাল ফ্যালাসি কী?

Fallacy একটি ল্যাটিন শব্দ যার বাংলা অর্থ হচ্ছে ভুল বা মিথ্যা বিশ্বাস/ মিথ্যা যুক্তি/ প্রতারণামূলক কিছু। যেমন- ফ্যাকচুয়াল ভুল থাকা একধরণের ফ্যালাসি কিন্তু, এইটা কোনো লজিক্যাল ফ্যালাসি নয় ।

Logical Fallacy বা মিথ্যা যুক্তি হচ্ছে যৌক্তিকতায় এক ধরণের ত্রুটি যা চিত্তাকর্ষক হলেও বাস্তবে কিছুই প্রমাণ করতে পারে না। এটি এক ধরণের মিথ্যা বিবৃতি।

সাধারণত রাজনীতি, নিউজ ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া,উপস্থাপনা ও বিতর্কসহ বিভিন্ন স্থানে এর ব্যবহার করা হয় ব্যক্তির চিন্তা চেতনায়, বিশ্বাসে, আচার আচরণকে নির্দিষ্টভাবে ভুল পথে ধাবিত করার জন্য।

বিশেষ করে জনগণের উপর প্রভাব বিস্তারের জন্য রাজনীতিবিদ ও মিডিয়ায় এর ব্যাপক ব্যবহার লক্ষ্যণীয়।

লজিক্যাল ফ্যাল্যাসি প্রয়োগ এবং কাঠামোগত ভিন্নতার কারণে এসব ফ্যালাসিগুলোকে শ্রেণিতে বিভাজন করা অনেক চ্যালেজ্ঞিং হয়। Fallacy-গুলো কাঠামো এবং বিষয় বস্তুর নির্ভর দুটি শ্রেণিতে ভাগ করা যায়ঃ

১। ফরমাল ও

২। ইনফরমাল

এখানে আমরা এরকম কিছু ফ্যালাসি নিয়ে আলোচনা করবো যা আমরা প্রায় সময় ব্যবহার করে থাকি।

Ad Hominem Fallacy

Ad Hominem একটি ল্যাটিন শব্দ যার অর্থ “against the man” বা “মানুষের বিরুদ্ধে”।

এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং বহুল ব্যবহৃত একটি লজিক্যাল ফ্যালাসি। যেখানে, একজন ব্যক্তি যুক্তি উপস্থাপন করে এবং অপরপক্ষ যুক্তিসঙ্গত উত্তর না দিয়ে ব্যক্তিগত আক্রমণ, অশ্লীল কথা, শারীরিক আক্রমণ, অতীতের কর্মকান্ড তুলে ধরে ও অপ্রাসঙ্গিক কথা বলে এবং শেষে ঐ ব্যক্তির যুক্তিকে ভুল দাবি করে।  এখানে ১ম ব্যক্তি তার বক্তব্য পেশ করেন এবং ২য় ব্যক্তি তাকে ব্যক্তিগত আক্রমন করেন এবং ব্যক্তিগত আক্রমণের মাধ্যমে ১ম ব্যক্তির বক্তব্যকে ভুল দাবি করেন। উদাহরণঃ

(১)

১ম জনঃ আমি বিশ্বাস করি যে প্রকৃ্তির সৃষ্টি একটি কাকতালীয় ব্যাপার।

২য় জনঃ তুমি এমনি বলবা কারণ তুমি তো নাস্তিক।

(২)

১ম ব্যক্তিঃ ঐ শিক্ষক পড়াতে জানে না ।

২য় ব্যক্তিঃ কারণ সে একটি স্থানীয় কলেজ থেকে ডিগ্রী লাভ করেছে।

(৩)

১ম জনঃ আমি আমাদের প্রদেশে ন্যূনতম মজুরি বাড়ানোর পক্ষে।

২য় জনঃ সে ন্যূনতম মজুরি বাড়ানোর পক্ষে অথচ সে একটি ব্যাবসা চালানোর জন্য যথেষ্ট বুদ্ধিমানও না।

এখানে, উদাহরণ দুটিতেই ১ম ব্যক্তির ক্লেইমকে নাকচ করে ২য় ব্যক্তি ব্যক্তিগত আক্রমণ করে ক্লেইমকে ভুল দাবি করে।

Image Source: https://owl.excelsior.edu

Strawman Fallacy

একজন ব্যক্তির প্রকৃ্ত অবস্থান বা যুক্তিকে বিকৃ্তি করা, অতিরঞ্জিত করা, কোন বিষয়কে অপ্রাসঙ্গিক বা ভুলভাবে উপস্থাপন করা যার মাধ্যমে কোন যুক্তির সহজে বিরোধিতা করা যায়। উদাহরণঃ

ব্যক্তি কঃ সৃষ্টিকর্তা সম্পর্কে আপনার কি ধারণা?

ব্যক্তি খঃ আমি সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসী নয়।

ব্যক্তি কঃ তাহলে কি আপনি মনে করেন আমরা এখানে আকস্মিকভাবে এসেছি এবং প্রকৃ্তি আপনা-আপনি সৃষ্টি হয়েছে?

ব্যক্তি খঃ আপনি নিজে এইসব নিজ থেকে অনুমান করে নিচ্ছেন শুধুমাত্র আমি সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাস করি না বলে?

এখানে ব্যক্তি শুধু এটুকুই বলছেন যে তিনি সৃষ্টিকর্তায় বিশ্বাসী নন। তিনি কোনভাবেই আমাদের জন্মকে আকস্মিক এবং প্রকৃতি যে আপনা-আপনি সৃষ্টি সেই ধরণের কোন দাবি বা মন্তব্য করেননি। কিন্তু ব্যক্তি ক, ব্যক্তি খ-এর যুক্তিকে ভুলভাবে উপস্থাপন করছেন, এটিই স্ট্রম্যান ফ্যালাসি।

Image Source: https://owl.excelsior.edu

Slippery Slope Fallacy

যখন একটি অপেক্ষাকৃত তুচ্ছ (প্রথম) ঘটনা অধিক গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার দিকে ধাবিত করে, যার ফলে পালাক্রমে অধিক উল্লেখযোগ্য ঘটনা ঘটে এবং এভাবে চলতে থাকে যতক্ষণ পর্যন্ত না কোন নির্দিষ্ট একটি ঘটনায় পৌঁছায় যেখানে প্রতিটি ঘটনা শুধুমাত্র অনিশ্চিতই নয় বরং প্রতিটি ধাপে এইটি আরো বেশি অসম্ভব বা অসঙ্গত কিংবা অকল্পনীয় হয়ে যায়। এখানে বহু ঘটনার উপস্থাপন করা হয়। এটি ব্যবহার করা হয় মানুষ বা জনগনের মধ্যে ভয়ের সঞ্চারের জন্য। ভয়কে সম্পূর্ণভাবে যুক্ত করে এই ফ্যালাসি ব্যবহার করা হয়। এটি আমরা সচরাচর আমাদের পিতামাতা, বন্ধুবান্ধবদের সাথে ব্যবহার করে থাকি। যেমনঃ

আমরা আমাদের শিশুটিকে রুম থেকে বের হতে দিতে পারি না, যদি আমরা তাকে রুম থেকে বের করি তাহলে সে পুরো বাড়ি জুড়ে বেড়াতে চাইবে। আমরা যদি তাকে পুরো বাড়ি বেড়াতে দিই তাহলে সে পুরো পাড়া জুড়ে বেড়াতে চাইবে। আমরা যদি তাকে পুরো পাড়া জুড়ে বেড়াতে দিই তাহলে তাকে অপরিচিত কেউ গাড়িতে করে তুলে নিয়ে যাবে এবং তাকে সে অন্য কোন দেশে পাচার করবে। তাই আমাদের উচিত হবে শিশুটিকে রুমে আটকে রাখা।

উপরের উদাহরণ শুরু হয় ঘটনাগুলোর সম্ভাব্য প্রভাব নিয়ে। যদি শিশুটিকে রুম থেকে বের হতে দেওয়া হয় তবে সে হয়তো যথাসম্ভব পুরো বাড়ি জুড়ে বেড়াতে চাইবে- এখানে এর সম্ভাব্যতা ৯৫%। পুরো বাড়ি ঘুরার পর সে হয়তো বাইরে যেতে চাইবে কিন্তু তার মানে এটা নয় যে সে পুড় পাড়া জুড়ে ঘুরতে চাইবে- ধরে নিই এর সম্ভাব্যতা ১০%। এখান থেকেই অসম্ভাব্যতা কিংবা অসঙ্গতি শুরু হয়। শিশুটিকে অপরিচিত কেউ তুলে নিয়ে যাওয়ার সম্ভাব্যতা (১%), তাকে বিদেশে পাচার করার সম্ভাব্যতা (০.৫%)। এখন, নৈতিকতা ও বৈধতাকে একপাশে সরিয়ে রেখে, উপরে বর্ণিত সম্ভাবনাগুলোর আলোকে কি শিশুটিকে রুমে আটকে রাখা উচিত?

আমাদের বাবা-মা প্রায় এ কথা বলে যে, ভালো করে লেখাপড়া না করলে ভালো রেজাল্ট আসবে না এবং ভালো রেজাল্ট না করলে ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ে চান্স পাওয়া যাবে না ফলে ভালো চাকরি হবে না।ভালো চাকরি না থাকলে কোনো বাবা তার মেয়েকে বিয়ে দিবে না এবং সর্বশেষে বৃদ্ধ বয়সে একা থাকতে হবে।

Image Source: pinterest.com

False Dichotomy

এই ফ্যালাসির অন্য কিছু নাম রয়েছেঃ “Black-and-white fallacy,” ”Either-or fallacy,” “Bifurcation fallacy,” “Fallacy of false choice”।

এখানে শুধুমাত্র দুটি অপশন উপস্থাপন করা হয় বাস্তবে যদিও দুটির বেশি অপশন বিদ্যমান। False dichotomy তে “হয় এইটা নাহলে ওইটা” এইভাবে চিহ্নিত করা হয়। এর আরেকটা বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এখানে অন্যসব “বিকল্প বাদ” দেওয়া হয় এবং শুধুমাত্র দুটি বিকল্প রাখা হয়। যেমনঃ

(১) বাংলাদেশের নির্বাচনের সময় দুটি অপশন দেখানো হয়। আপনি হয় আওয়ামী লীগ, নয় বিএনপিকে ভোট দিবেন। যদি আওয়ামী লীগকে ভোট না দেন তাহলে নিশ্চয় বিএনপিকে? 


(২) তুমি এখন ভাত খাবে নাকি সারাদিন ক্ষুধার্ত থাকবে?

প্রথমটিতে আপনাকে শুধুমাত্র দুটি অপশন দেয়া হয়েছে। অথচ বাংলাদেশে বহু রাজনৈতিক দল রয়েছে । আপনার যদি আওয়ামী লীগ বা বিএনপিকে ভোট দেয়ার ইচ্ছা না থাকে তাহলে আপনি অন্য দলকে ভোট দিতে পারেন বা কোনো স্বতন্ত্র প্রার্থীকে দিতে পারেন। কিন্তু এই ফ্যালাসি ব্যবহার করে শুধুমাত্র দুটি অপশন উপস্থাপন করা হচ্ছে।

দ্বিতীয় উদাহারণ এ শুধুমাত্র দুটি অপশন লক্ষ্য করা যায় “হয় এখন খেতে হবে না হলে সারাদিন ক্ষুধার্ত থাকতে হবে“। বাস্তবে এখানে আরো অনেক অপশন রয়েছে, হয়তো তার এখন ক্ষিধা লাগছে না বা একটু পরে খাবে কিন্তু এখানে দুটি অপশন দেয়ার মাধ্যমে অন্য অপশনগুলোকে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

False Dichotomy বা Either or Fallacy'র উদাহরণ
False Dichotomy বা Either or Fallacy’র উদাহরণ, Image Source: Buzzle.com

Circular Argument

যখন যুক্তি বা বিবৃতিগুলোর পুনরাবৃত্তি হয় এবং নতুন কোনো সিদ্ধান্তে উপনিত হয় না তখন আমরা এটিকে Circular Argument বলি। এটি এক প্রকার কুযুক্তি যেখানে একটি বিবৃতির উপসংহারকে ঐ বিবৃতির সূচনা দ্বারা সমর্থন করা হয়। ফলে বিবৃতির পুনরাবৃত্তি হয়, নতুন কোনো প্রয়োজনীয় তথ্য যোগ হয় না এবং একই বিবৃতি বারবার বলে যুক্তি প্রমাণ করার চেষ্টা করা হয়। মূলত এখানে কোন কিছুকে প্রমাণ না করে বরং একই জিনিস অন্যভাবে পুনরায় বলা হয়। যেমনঃ

(১)

মেজর X সেনাবাহিনীর সেরা কমান্ডো, কারণ সেনাবাহিনীতে তার মত আর কোনো কমান্ডো নেই।

(২)

বাইবেল হচ্ছে ঈশ্বরের বাণী কারণ ঈশ্বর বাইবেলে এটি বলেছেন।

উপরের উদাহারণগুলো পর্যালোচনা করলে বুঝা যায় যে এখানে বিবৃতির পুনরাবৃত্তি হয়েছে।

Circular Argument’র উদাহরণ, Image Source:  https://enviropaul.wordpress.com

 

Circular Argument বা Circular Reasoning'র উদাহরণ
Circular Argument বা Circular Reasoning’র উদাহরণ, Image Source: slideplayer.com

Fallacy of Sunk Cost

“Sunk Cost বা ডুবে যাওয়া খরচ হচ্ছে একটি অর্থনৈতিক টার্ম যার অর্থ অতীতের ব্যয়ের জন্য যা আর পুনরুদ্ধার করা সম্ভব নয়। যে খরচ ইতোমধ্যে হয়ে গেছে সেটি হচ্ছে ডুবে যাওয়া খরচ। মনে করেন, আপনি ১২ টাকা দিয়ে একটি সিগারেট কিনলেন। এইখানে আপনি যে টাকা দিয়ে সিগারেট কিনলেন সেই টাকা হচ্ছে আপনার ডুবে যাওয়া খরচ যা ইতোমধ্যে খরচ হয়ে গেছে। আর এই খরচের টাকা পুনরুদ্ধার করতে আপনি ধূমপান করলেন যা আপনার শরীরের জন্য ক্ষতিকর। Sunk Cost Fallacy তা হচ্ছে যে খরচটি আমরা ইতিমধ্যে করে ফেলেছি সেটি বিবেচনা করে খারাপ বা ভুল সিদ্ধান্ত নেয়া। যেমনঃ

(১)

আপনি কোনো রেস্টুরেন্টে বুফে খাওয়ার জন্য ৫০০ টাকা দিলেন এবং খাওয়া শুরু করলেন এবং খেতে থাকলেন। খেতে খেতে পেট ভর্তি হওয়ার পরেও আপনি আরো খাচ্ছেন কারণ আপনার ৫০০ টাকা পুনরুদ্ধার করতে হবে। শুরুতে যে ৫০০ টাকা দেয়া হয়েছে সেটি হচ্ছে Sunk Cost বা ডুবে যাওয়া খরচ। ৫০০ টাকা অসুলের জন্য যে অতিরিক্ত খাবার খেয়ে নিজেকে কষ্ট দেয়া হচ্ছে ভুল সিদ্বান্ত।

 

(২)

কোনো প্রতিষ্ঠান এ ১০ বছর চাকরি করে X চিন্তা করল সে অবসর পর্যন্ত চাকরি চালিয়ে যাবে কারণ সে ১০ বছর চাকরি করেছে এবং অবসর পর্যন্ত চালিয়ে যেতে কোনো সমস্যা হবে না।

এখানে X অতীতের কর্মের উপর ভিত্তি করে তার ভবিষৎ সিদ্বান্তে উপনিত হয়েছে যা একটি ভুল সিদ্ধান্ত। যে ১০ বছর চাকরি করেছে তা হয়ে গেছে বা ডুবে গেছে যা আর করা উদ্বার সম্ভব নয়।

Image Source: foreverjobless.com

Red Herring

Red Herring মূলত একটি মাছের নাম যার ঘ্রাণ অনেক তীব্র। এটি শিকারি কুকুরগুলোকে বিভ্রান্ত করার জন্য ব্যবহার করা হয়। এটি একটি লজিক্যাল ফ্যালিসিরও নাম। এই ফ্যালিসি হচ্ছে বিভ্রান্ত করা বা ঘটনাকে অন্যদিকে মোড় দেয়ার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করা। রেড হেরিং হচ্ছে ইচ্ছাকৃতভাবে আসল যুক্তি থেকে সরে আসার উদ্দেশ্যে কোনো ঘটনাকে অন্যদিকে প্রবাহিত করা বা চিত্তবিক্ষেপ করা। কোনো ঘটনাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য নতুন ঘটনার সৃষ্টি করা যার উদ্দেশ্য লক্ষ্য পরিবর্তন সাধন করা। রাজনীতিতে এর ব্যবহার ব্যাপকহারে লক্ষ্যণীয়।

X: স্ত্রীর সাথে প্রতারণা করা নৈতিকভাবে অন্যায়। পৃথিবীতে মানুষ কেন যে এমন করে!

Y: কিন্তু নৈতিকতা জিনিসতা কি আসলে?

X: এটি একটি আচরণ বিধি যা সংস্কৃতির অংশ।

Y: কে এই আচরণ বিধির সৃষ্টি করে?

 

 

এখানে Y বার বার নৈতিকতার কথা, আচরণ বিধি সৃষ্টির কথা বলে মূল আলোচনার বিষয়টিকে অন্যদিকে পরিবর্তন করেছে।

                     Red Herring Fallacy’র উদাহরণ, Image Source: https://psychologenie.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here